ব্লগ কি এবং কেন? আপনার একটি ব্লগ কেন প্রয়োজন?

ব্লগ কি এবং কেন? আপনার একটি ব্লগ কেন প্রয়োজন?

আমাদের মাঝে অনেকেই আছেন নতুন করে ব্লগিং শুরু করতে চাইছেন কিন্তু কিভাবে শুরু করবেন বুঝতে পারছেন না। এই পোস্টে আমি তাদের জন্য ব্লগ অর্থ কি,  ব্লগের ইতিহাস,  ব্লগং কি ও কেন?, ব্লগার সাধারনত কারা?   ব্লগ এর প্রকারভেদ,  ব্লগ কিভাবে তৈরি করতে হয়? ব্লগিং করে কিভাবে আয় করা যায়? এই সকল বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো । এবার চলুন আলোচনা করা যাক ।


ব্লগ অর্থ কি?

সহজ ভাবে বলতে গেলে, ব্লগ হচ্ছে অনেকটা ডায়েরি লেখার মতো । একটা ডাইরিতে যেমন আপনি আপনার ইচ্ছামত বিষয়ে লিখতে পারেন তেমনি একটি ব্লগেও আপনি আপনার ইচ্ছা মতো বিষয় নিয়ে আর্টিকেল লিখতে পারবেন ।

আপনার ব্লগে আপনি কোনো গল্প, কোন এক বিষয়ের টিউটোরিয়াল, বিভিন্ন মজার এসএমএস, কবিতা, গান, সংবাদ যে কোনো কিছুই লিখতে পারেন । সেটা নির্ভর করে আপনার উপর । আপনার কোন বিষয়ে আগ্রহ বেশি গ্রো করে । কারণ আগ্রহের বিষয়গুলো নিয়ে সারাদিন কাজ করলেও বিন্দুমাত্র ক্লান্তি বোধ করবেন না বা খারাপ লাগবে না ।

তবে আপনি যে বিষয় নিয়ে লিখেন না কেন তা হতে হবে সাবলীল এবং পরিচ্ছন্ন লেখা। তাহলেই মানুষ আপনার লেখা পড়তে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবে এবং আপনার সাইটে বেশি বেশি ভিজিটর পাবেন ।

ব্লগিং যারা করেন বা যারা ইন্টারনেটে বিভিন্ন ওয়েব সাইটে লেখালেখি করেন এবং এই ব্লগ গুলো যারা সৃষ্টি করেন তারাই হল ব্লগার অর্থাৎ যিনি ব্লগে পোস্ট করেন বা লেখা লিখি করেন তাদেরকে বলা হয় ব্লগার ।


ব্লগের ইতিহাস

Blog শব্দটির আবির্ভাব হয়েছে Weblog থেকে । Weblog শব্দটি সর্ব প্রথম ব্যবহার করা হয় ১৯৯৭ সালের ১৭ ডিসেম্বর । শব্দটির আবিস্কারক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক জন বার্জার । এর ঠিক দু’বছর পর ১৯৯৯ সালের এপ্রিল এবং মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে পিটার মহোলজ নামের একব্যাক্তি Weblog শব্দটিকে ভেঙ্গে দুই ভাগ করেন- We Blog এর পরই সারা পৃথিবীব্যাপী অনলাইনে ব্লগের বিষয়টি জনপ্রিয় হতে শুরু করে ।


ব্লগ কি ও কেন?

ব্লগ হলো এমন একটি ওয়েব সাইট যেখানে আপনার ইচ্ছা মতো বিষয়বস্তু লিখে বিশ্বব্যাপী প্রকাশ করতে পারবেন । একটি নির্দিষ্ট ওয়েব সাইটে যে কোনো বিষয়কে পাঠকদের সামনে তুলে ধরাকে ব্লগিং বলে । ব্লগিং জিনিসটা যদি সংক্ষেপে বলি তাহলে বলব বিভিন্ন ব্লগে বা ওয়েভ সাইটে সাবলিল ভাবে প্রতিনিয়ত যা লেখা হয় সেটাই ব্লগিং । এই ব্লগিং বিভিন্ন বিষয় নিয়ে হতে পারে, যেমন গল্প, রাজনীতি, টেকনোলজি, ভ্রমণ কাহিনী, আপনার জীবনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখা । এক কথায় একটি ডায়েরির মত সব লেখা গুলোকে গুছিয়ে রাখা ।


ব্লগের প্রয়োজনীয়তা

মানুষ স্বাভাবিক ভাবেই আত্মপ্রচার ও সাফল্যের আশা করে থাকে । একটি ব্লগ সাইটের মাধ্যমে আমরা অনেকটা সহজেই সেটা করতে পারি । ব্লগের মাধ্যমে আমরা আমাদের ব্যক্তিগত মতামত প্রকাশ করা, আমাদের আশেপাশে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনা সকলের কাছে পৌঁছে দিতে পারি, আমাদের আবেগ অনুভূতি গুলো পাঠকদের সাথে শেয়ার করতে পারি, তাছাড়া নিজের সৃষ্টি, কর্ম, ব্যবসা প্রভৃতি বিষয়ক তথ্যাবলীও প্রকাশ করতে পারবেন ।

ব্লগের মাধ্যমে আমরা খুব সহজেই পাঠকদের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারি । তাছাড়া এমন অনেক ব্যক্তি আছেন যারা লেখক বা লিখতে পছন্দ করেন । তারা চান তাদের লেখা পড়ে অন্য দশজন যেন উপকৃত হয় আর সেই উদ্দেশ্য নিয়ে ব্লগাররা প্রতিদিন নিজের লেখা প্রকাশের চেষ্টা করেন ।


ব্লগ এর প্রকারভেদ

ব্লগ বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে নিচে কয়েকটি ব্লগ প্রকারভেদ আমি আপনাদের কাছে তুলে ধরলাম

  • ব্যক্তিগত ব্লগ: নিজের ব্যক্তিগত বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরা অথবা নিজের জ্ঞানকে অন্যের কাছে তুলের জন্য যে ব্লগ তৈরী করা হয় সেটাই ব্যাক্তিগত ব্লগ ।
  • নির্দিষ্ট বিষয়ের বা নিশের উপর ব্লগ: এই ধরনের ব্লগ সাধারণ বেশি দেখা যায় যেমন টেকিব্লগ, ফটো ব্লগ, আর্ট ব্লগ, ভিডি ব্লগ, এমপিথ্রি ব্লগ, এন্টারটেইটমেন্ট ব্লগ (মুভি বা নাটকের ব্লগ) এই ব্লগ এর মাধ্যমে অনেকে ইনকাম করে থাকে ।
  • প্রাতিষ্ঠানিক ব্লগ: বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নিজেদের যাবতীয় তথ্য নিয়ে যে ব্লগ তৈরী করে সেগুলো হলো প্রতিষ্ঠানিক ব্লগ ।
  • সামাজিক ব্লগ: সমাজের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ড নিয়ে তৈরী ব্লগ গুলো হল সামাজিক ব্লগ ।


ব্লগ কিভাবে তৈরি করে?

ব্লগ সাধারনত দুই ভাবে তৈরী করা যায় । একটা হচ্ছে ফ্রি এবং আরেকটি হচ্ছে পেইড ।  বিভিন্ন সাইট আছে যে গুলোর সাহায্যে আপনি ফ্রিতে ব্লগ তৈরী করতে পারবেন, যেমন – Blogger.com ।  আপনি এদের সাইটে বিনামুল্যে সাইট তৈরী করতে পারবেন, যেমন – Yourname.blogspot.com ।  এখানে আপনি ইচ্ছা করলে কাস্টম ডোমেইনও ব্যবহার করতে পারবেন । যেমন – Yourname.com ।  আর যদি আপনি স্বাবলম্বি হন তাহলে WordPress দিয়ে ডেভলপার দিয়েও ব্লগ সাইট তৈরী করতে পারবেন ।


ব্লগিং করে কিভাবে আয় করা যায়?

  • বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক থেকে আয়: আপনি একটি ব্লগ তৈরী করে সেটা এড নেটওয়ার্কের মনিটাইজেশন নিয়ে সেখান থেকে আয় করতে পারবেন । এড, ক্লিক, ইম্প্রেশনের মাধ্যমে এড নেটওয়ার্কগুলো থেকে আয় করা যায় । জনপ্রিয় এড নেটওয়ার্কগুলো হলো: Google AdSense, Ezoic.com, Media.net
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং: আপনার তৈরীকৃত ব্লগটিতে যদি অনেক ভিজিটরের আনাগোনা থাকে তাহলে আপনি বিভিন্ন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনেক টাকা উপার্যন করতে পারবেন  যেমন- আলীবাবা, আলী এক্সপ্রেস, অ্যামাজন ইত্যাদী ।
  • ডিজিটাল প্রোডাক্ট বিক্রি:  আপার যদি একটি পপুলার ব্লগ সাইট থাকে তাহলে বিভিন্ন প্রকার ডিজিটাল প্রডাক্ট বিক্রয়-এর মাধ্যমে টাকা আয় করা সম্ভব । যেমন - রেডি ওয়েবসাইট, ব্লগ থিম (ব্লগার, ওয়ার্ডপ্রেস), ই-বুক, সফটওয়্যার ও গেমস, ডোমেইন-হোষ্টিং বিক্রয়, ইত্যাদি
  • অনলাইন কোর্স তৈরি করে আয়: আপনার তৈরীকৃত ব্লগের সাহায্যে অনলাইনের বিভিন্ন কোর্স বিক্রয় করে আয় করতে পারবেন । যেমন – এসইও, ইংলিশ লার্নিং, কম্পিউটার ব্যাসিক, ডিজিটাল মার্কেটিং, ওয়েব ভেভেলপমেন্ট, ওয়েব ডিজাইন, ইত্যাদি ।
  • লোকাল বিজ্ঞাপন: আপনার ব্লগটি যদি অনেক পপুলার হয় তাহলে লোকাল অনেক কোম্পানীর এড প্রচারের মাধ্যমে আয় করতে পারবেন ।
  • পেইড রিভিউ লিখে: ব্লগের মধ্যমে বিভিন্ন কোম্পানীর প্রডাক্টের রিভিউ লিখে আয় করতে পারবেন । যেমন – আপনি স্যামসাং মোবাইলের একটি মোবাইল নিয়ে তাদের সমস্ত সুবিধা ও অসুবিধা লিখলেন । এর বিনিময়ে স্যামসাং আপনাকে অর্থ প্রদান করলো, এটাই মুলত পেইড রিভিউ ।


পরিশেষে

বর্তমান যুগে ব্লগ একটি প্রয়োজনীয় বিষয়। আমরা ব্লগ থেকে অনেক কিছু শিখতে/জানতে পারি আবার ব্লগ লিখে উপার্জন ও করতে পারি।  আশা করি, লেখাটি আপনাদের উপকারে এসেছে। যদি ব্লগ সম্পর্কে যদি আরো কিছু জানার থাকে আমার সাথে যোগাযোগ করুন।
নবীনতর পূর্বতন

যোগাযোগ ফর্ম