আমি যে টুলস ব্যবহার করি


আমি অনেক টুলস ব্যবহার করি না।  তবে মনে করি যে, উদ্যোক্তারা কী টুলস ব্যবহার করেন তা আমাদের জানা প্রয়োজন।  একজন  ডিজিটাল উদ্যোক্তা  হিসেবে বর্তমানে আমিও আমার ব্যবসার জন্য বেশ কয়েকটি টুলস ব্যবহার করি৷ 

আপনি কি আপনার ব্যবসা চালানোর জন্য ব্যবহৃত ৯ টি টুলস সম্পর্কে জানতে চান? আশা করি এই টুলস গুলো আপনাকে একজন সফল উদ্যোক্তা হওয়ার যাত্রা শুরু করতে সাহায্য করবে।

আমি আমার ব্যবসার জন্য কোন টুলস ব্যবহার করি তা আমি এই নিবন্ধে আলোচনা করব। নিঃসন্দেহে এটি আমার প্রিয় টুলস তালিকা যা দীর্ঘদিন যাবৎ ব্যাবসার জন্য ব্যবহার করি ৷ 


আমি আমার ব্যবসার জন্য কি টুলস ব্যবহার করি?

আপনি যদি সফলভাবে ব্যবসা চালাতে চান তবে টুলস গুলো  অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই টুলস গুলো আপনাকে বিভিন্ন উপায়ে সাহায্য করতে পারে। বাজারে অনেক অনেক টুলস রয়েছে, কিন্তু তাদের প্রতিটি কাৰ্যকর নয়। আমি আজ শেয়ার করব যে, কোন ব্যবসার জন্য কোন টুলস গুলো আবশ্যক। আমি আমার ব্যবসার জন্য কোন টুলস গুলো ব্যবহার করি এবং কীভাবে তারা আমার ব্যবসা ঝুঁকি হ্রাস করে এবং সফলভাবে চালাতে সাহায্য করে।


১। NameCheap

NameCheap

আপনার বিজনেসের জন্য একটি ডোমেইন নাম রেজিস্ট্রেশন করার সবচেয়ে ভালো ওয়েবসাইট হল Namecheap।  Namecheap এ রয়েছে শত শত ডোমেইন।  আপনার পছন্দের ডোমেইনটি খুব সহজেই খুঁজে পেতে NameCheap আপনাকে সাহায্য করবে।

নেমচিপ মার্কেটের অন্যান্য ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন সার্ভিস প্রোভাইডারের থেকে অনেক কম মূল্যে ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন সুবিধা দিয়ে থাকে।  অবশ্যই আপনার বিজনেসের নামটি আজই Namecheap সার্চ করুন এবং অন্য কেউ তা রেজিস্ট্রেশন করার পূর্বেই আপনার নামে রেজিস্ট্রেশন করুন।


২। Interserver 

Interserver


Interserver নির্ভরযোগ্য ইন্টারন্যাশনাল ওয়েব হোস্টিং সরবরাহকারী। Interserver ক্ষুদ্র এবং মাঝারি ব্যাবসায়ীদের নিকট ওয়েবসাইট হোস্টিং সরবরাহে সারা পৃথিবীতে পরিচিত।  Interserver তাদের হোস্টিং সকলের কাছে নির্ভরযোগ্য গড়ার লক্ষ্যে সারা পৃথিবীতে বিভিন্ন দেশে তারা নিজস্ব সার্ভার তৈরি করেছে যেটি একটি ওয়েবসাইটের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। 

Interserver গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন প্যাকেজ এবং মূল্য তালিকা করেছে।  আপনার বিজনেসের জন্য সুবিধাজনক যে কোন প্যাকেজ খুব সহজে ক্রয় করতে পারেন।  এছাড়াও Interserver এর রয়েছে শক্তিশালী কন্ট্রোল পানেল (Control Panel)যেখানে কোন ঝামেলা ছাড়াই আপনার হোস্টিং কে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন।  


৩। Exonhost

Exonhost

Exonhost ও Interserver মত হোস্টিং প্রোভাইডার। কিন্তু পার্থক্য হচ্ছে Interserver আন্তর্জাতিক ওয়েব হোস্টিং সরবরাহকারী এবং Exonhost হলো বাংলাদেশের শীর্ষ ওয়েব হোস্টিং সরবরাহকারী।  দেশীয় বাজারের অন্যান্য হোস্টিংয়ের থেকে Exonhost কিছু ব্যতিক্রমী সুবিধা দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সারা ফেলেছে। 

Exonhost নির্ভরযোগ্য ডিস্ক স্পেস, ব্যান্ডউইথ, ট্রান্সফার স্পিড, এবং অনেকগুলো ওয়েবসাইট চালু করার সুবিধা দিচ্ছে।  Exonhost ২৪/৭ বাংলায় সরাসরি সাপোর্ট সেবা দিয়ে থাকে। আপনার পছন্দের হোস্টিং প্যাকেজটি  বিকাশ, রকেট, নগদ, এবং বাংলাদেশী জনপ্রিয় পেমেন্ট মেথডের মাধ্যমে আজই ক্রয় করতে পারেন।


৪। Semrush

Semrush

আমি গত দুই বছর ধরে Semrush ব্যবহার করেছি।  Semrush এসইও  ইন্ডাস্ট্রিতে খুব নির্ভরযোগ্য একটি টুলস। Semrush  আমাদের কিওয়ার্ড রিসার্চ, কিওয়ার্ড মনিটরিং, প্রতিযোগীদের  সম্পর্কে তথ্য এবং আরও অনেক বিষয়ে সাহায্য করে। 

এই মুহূর্তে, Semrush এ ট্রায়াল প্ল্যান অফার চলছে।  আমরা ট্রায়াল ব্যবহারের মাধ্যমে Semrush সম্পর্কে এবং মার্কেটে অন্যান্য প্রতিযোগী এসইও টুলস সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা রাখতে পারবো। যা পরবর্তীতে কোনো প্রিমিয়াম এসইও টুলস প্যাকেজ ক্রয় করার সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে।


৫। Canva

Canva

Canva ব্লগ পোষ্টের ফটো তৈরি করার একটি দুর্দান্ত মাধ্যম। আমি Canva দিয়ে ফটো, ইনফোগ্রাফিক্স, সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট ইমেজ, এবং আরো অনেক কিছু  তৈরি করতে পারি।

Canva তে অনেকগুলো টেমপ্লেট রয়েছে যেগুলি ড্রাগ এন্ড ড্রপ (Drag & Drop) করে কিছু এডিটিং করার মাধ্যমে খুব সহজেই সুন্দর ফটো তৈরি করা যায়। এছাড়াও Canva মোবাইল,  ট্যাবলেট,  অথবা কম্পিউটার যেকোনো  ডিভাইসের সাথে মানানসই। 

এছাড়াও মজার ব্যাপার হলো,  সম্প্রতিকালে Canva দিয়ে এডভার্টাইজিং এর জন্য খুব সুন্দর ভিডিও তৈরি করা যায়। 


৬। Sendinblue

Sendinblue

Sendinblue ইমেইল মার্কেটিংয়ের ইন্ড্রাষ্টিতে বিশস্ত একটি নাম।  Sendinblue গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী সেবা প্রদান করার মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। ই-মেইল মার্কেটিংয়ের জন্য যে সমস্ত বৈশিষ্ট্যগুলো প্রয়োজন মোটামুটি সবগুলো বৈশিষ্ট্যই Sendinblue তে রয়েছে। যেমন: ইমেইল মার্কেটিং, এসএমএস মার্কেটিং, লাইভ চ্যাট, সিআরএম (CRM),  মার্কেটিং অটোমেশন, ল্যান্ডিং পেজ, ফরম এবং আরো অনেক।

এই মুহূর্তে Sendinblue তে সম্পূর্ণ ফ্রি প্যাকেজ অফার চলছে। যেটি ব্যবহার করার মাধ্যমে অনেক ইমেইল সংগ্রহ এবং প্রতিদিন ৩০০ টি  ই-মেইল সেন্ড করা যাবে।  তাই ই-মেইল মার্কেটিং শুরু করতে আজই ফ্রি প্যাকেজ অফার লুফে নিতে রেজিস্ট্রেশন করুন। 


৭। Tidio 

Tidio

Tidio লাইভ সাপোর্ট টুলস।  Tidio ওয়েবসাইটে যুক্ত করার মাধ্যমে ভিজিটরদের সঙ্গে সরাসরি চ্যাটিং করা যায়। Tidio লাইভ চ্যাটের মাধ্যমে একসঙ্গে অনেকগুলো ভিজিটরের সঙ্গে কথা বলা যায়।  ভিজিটরের সংখ্যা বেশী হলে খুব সহজেই চ্যাট এজেন্ট যুক্ত করা যায়।  যারা আপনার হয়ে ভিজিটরদের লাইভ সাপোর্ট দিবে। 

Tidio তে রয়েছে শক্তিশালী এবং সহজ কন্ট্রোল প্যানেল (Control Panel) যেটি ব্যবহারের মাধ্যমে সহজেই ভিজিটর এবং সাপোর্ট এজেন্ট ব্যবস্থাপনা করা যায়। এছাড়াও Tidio তে রয়েছে চ্যাটবট (Chat Bot), যেটি আপনাকে ভিজিটরের তথ্য সংগ্রহ করতে সাহায্য করবে। যেমন: ভিজিটরের নাম, ই-মেইল, ফোন নম্বর এবং আরো অনেক। যেগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে পরবর্তীতে মার্কেটিং করতে পারেন। Tidio এর ফ্রি প্যাকেজটি নিতে আজই রেজিষ্ট্রেশন করুন।


৮। Google Analytics & Search Console 

Google Analytics & Search Console

Google Analytics ওয়েবসাইটের ভিজিটদের ব্যবহার বুঝতে সাহায্য করে। Google Analytics ওয়েবসাইটের পরিসংখ্যান সরবরাহ করে। যেমন: ভিজিটরদের সংখ্যা, অবস্থা, অবস্থানরত সময়, ট্রাফিক সোর্স এবং আরও অনেক। সবমিলিয়ে Google Analytics এর মাধ্যমে ওয়েবসাইটের উন্নতি এবং অবনতি সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা রাখতে পারি।

Google এ ওয়েবসাইট ইনডেক্স করার Google Search Console একমাত্র মাধ্যম। Google Search Console এর মাধ্যমে জানতে পারি কোন পেজটি ইনডেক্স (Index) হয়েছে আর কোনটি হয়নি। এছাড়াও Google Search Console এর মাধ্যমে ওয়েবসাইটের কোন সমস্যা এবং সমাধানের উপায় খুঁজে পাওয়া যায়। মোটকথা Google Analytics এবং Search Console উভয়ই ওয়েবসাইটের জন্য অপরিহার্য অংশ। 


৯| Payoneer

Payoneer

Payoneer হল একটি বিশ্বব্যাপী পেমেন্ট প্ল্যাটফর্ম যা তাৎক্ষণিকভাবে এবং নিরাপদে অনলাইনে টাকা পাঠাতে সাহায্য করে। আমি Payoneer ব্যবহার করি কারণ এটি ব্যবহার করা সহজ এবং খুব দ্রুত। আমি আমার অ্যাকাউন্ট থেকে মাত্র কয়েক মিনিটের মধ্যে টাকা  উত্তোলন করতে পারি।

Payoneer সম্পর্কে সবচেয়ে ভালো দিক হল যে, আপনার কার্ড চুরি হওয়ার বিষয়ে চিন্তা করার দরকার নেই। সাম্প্রতিকালে Payoneer ভার্চুয়াল কার্ড সরবরাহ করছে যেটি ব্যবহারের মাধ্যমে ফেসবুকে বুষ্টিং, গুগল এড, ডোমেইন হোস্টিং ক্রয়, অনলাইন স্টোরে থেকে পণ্য ক্রয়, এবং আরো অনেক কিছু করা সম্ভব। Payoneer PIN, MasterCard SecureCode, এবং Verified by Visa (VBS) এর মতো উচ্চ-নিরাপত্তা ব্যবস্থা সরবরাহ করে।


আমরা কিভাবে ৯টি টুলস একসঙ্গে ব্যবহার করতে পারি?

একটি ওয়েবসাইটের শুরু করার জন্য Namecheap থেকে ডোমেইন এবং Interserver অথবা Exonhost থেকে হোস্টিং ক্রয় করতে পারি। 

ওয়েবসাইট তৈরীর পরে আর্টিকেল লিখার পূর্বে কিওয়ার্ড রিসার্চের জন্য Semrush ব্যবহার করতে পারি।  এমতাবস্থায় সাইটের পোস্টের জন্য Canva দিয়ে সুন্দর ফটো বানাতে পারি। 

সাইটের প্রোমোশনের জন্য Sendinblue দিয়ে ইমেইল মার্কেটিং করতে পারি। সাইটের ভিজিটরদের সরাসরি সাপোর্টের সুযোগ করে দিতে Tidio ব্যবহার করতে পারি। 

Google Analytics দিয়ে ওয়েবসাইটের বর্তমান ভিজিটরদের অবস্থা এবং Google Search Console এর মাধ্যমে  ওয়েবসাইটের  বিভিন্ন সমস্যা এবং সমাধানের উপায় জানতে পারি। অবশেষে ওয়েবসাইট থেকে উপার্জিত অর্থ Payoneer এর মাধ্যমে গ্রহণ ও উত্তোলন করতে পারি। 


পরিশেষে 

এই ছিল আমার ব্যবহৃত ৯ টি  নির্ভরযোগ্য টুলস যা দীর্ঘদিন যাবৎ আমার কাজে ব্যবহার করছি। এই টুলস গুলো ব্যবহারের মাধ্যমে কাজে যথেষ্ট সহযোগিতা পেয়েছি এবং আশাকরি আপনারাও টুলস গুলো থেকে সহযোগিতা পাবেন। যারা নতুন ব্যবসা শুরু করবেন তাদের জন্য টুলস গুলো অত্যন্ত সহায়ক হবে।

যোগাযোগ ফর্ম